সাহায্য

পাঠসংখ্যা: 👁️ 754

বাংলায় লিখুন

বিজ্ঞান ব্লগ সম্পাদকদের একটা প্রত্যাশা হলো লেখার ক্ষেত্রে যত বেশি বাংলা শব্দ ব্যবহার করা যায়। যদিও দৈনন্দিন জীবনে আমরা প্রচুর ইংরেজি শব্দ ব্যবহার করি বা ফেসবুকে লিখি। কিন্তু একটা প্রবন্ধ লেখা বা প্রকাশের সময় বাংলা শব্দ অগ্রাধিকার দেয়া উচিত — বিশেষ করে যখন শব্দগুলো বাংলাতে রয়েছে। উপযুক্ত বাংলা শব্দ খুঁজে পাওয়ার জন্য গুগল ট্রান্সলেটর বেশ উপযোগী।

অ্যাপে পুশ নোটিফিকেশন ও ফেসবুক-পেজে পোস্ট

আপনাদের লেখা প্রকাশের ঠিক আগে আগে ডান দিকের এই সাইডবার থেকে চিহ্নিত দুইটা জায়গায় টিক চিহ্ন আছে কি না দেখে নিন।প্রথমটা অ্যাপে পুশ নোটিফিকেন পাঠাবে।দ্বিতীয়টা ফেসবুক পেজে অটোমেটিক পোস্ট দেবে।

কিভাবে লেখার প্রথম অক্ষরটি বড় আকারে দেখাবেন?

উপরে ছবির মতো প্রতিটি লেখার প্রথম অক্ষরটি বড় আকারে দিলে লেখাতে সুন্দর হয়ে প্রষ্ফুটিত হয়। এই সেটিংসটি ব্যবহার করার জন্য ওয়ার্ডপ্রেসে লেখার সময় এডিটরের ডান দিকে Text Settings খুঁজে নিন। উদাহরণ হিসেবে নিচের ছবিটি দেখুন।

 

কিভাবে গণিত লিখবেন?

অনেক সময় বিভিন্ন লেখায় গণিতের সূত্র, সমীকরণ ব্যবহার করার প্রয়োজন হয়। বিজ্ঞান ব্লগে আমরা MathJax এর মাধ্যমে $\mathrm\LaTeX$ ব্যবহার করি। কিভাবে $\mathrm\LaTeX$ ব্যবহার করে সমীকরণ লিখবেন তার বর্ণনা দিয়েছেন মুবতাসিম ফুয়াদ:


$\mathrm\LaTeX$ (ল্যাটেক) দিয়ে গণিত লেখা খুব সহজ এবং চমৎকার।

ইনলাইন ম্যাথ (বাক্যের মধ্যে গণিত) লিখতে চাইলে গাণিতিক অংশের সামনে ও পেছনে \$ চিহ্ন দিতে হবে। অর্থাৎ \$…\$ এর মধ্যে লিখতে হবে। ডিসপ্লে ম্যাথ (বাক্যের বাইরে গণিত) লিখতে চাইলে গাণিতিক অংশের সামনে ও পেছনে দিতে হবে \$\$ চিহ্ন। মানে সেটাকে লিখতে হবে \$\$…\$\$ এর মধ্যে। আর MathJax লোড করার জন্য লেখার যেকোন একজায়গায় উল্লেখ করতে হবে এই [mathjax] শর্টকোডটি।

উদাহরণ হিসেবে একটা ছোট প্যারাগ্রাফ দেখানো হলঃ

  • ইনপুটঃ

    যখন \$a \ne 0\$, তখন \$ax^2 + bx + c = 0\$ দ্বিঘাত সমীকরণের সমাধান দুইটা হচ্ছেঃ \$\$ x = {-b \pm \sqrt{ b^2 – 4ac } \over 2a} \$\$ এখানে \$b^2<4ac\$ হলে সমীকরণটির কোন বাস্তব সমাধান থাকবে না। 
    [mathjax]

  • আউটপুটঃ

    যখন $a \ne 0$, তখন $ax^2 + bx + c = 0$ দ্বিঘাত সমীকরণের সমাধান দুইটা হচ্ছেঃ $$ x = {-b \pm \sqrt{b^2-4ac} \over 2a}$$ এখানে $b^2<4ac$ হলে সমীকরণটির কোন বাস্তব সমাধান থাকবে না।

এই ছোট উদাহরণের ইনপুট-আউটপুট তুলনা করলে আশা করি $\mathrm\LaTeX$ এর উপযোগিতা নিয়ে কোন সন্দেহ থাকছে না। ইনপুট খেয়াল করলে বুঝবেন, $a\ne0$, $ax^2+bx+c=0$ এবং $b^2<4ac$ কে ইনলাইন-ম্যাথ হিসেবে রেখেছি তাদের দুইপাশে একটা করে \$ দিয়ে। আর মাঝের সমাধানের সূত্রটিকে দুইপাশে \$\$ দিয়ে ডিসপ্লে-ম্যাথ হিসেবে দেখিয়েছি। ডিসপ্লে-ম্যাথ এরকমভাবে বাক্য বা প্যারাগ্রাফের বাইরে গিয়ে লাইনের মাঝ-বরাবর থাকে। বাকিগুলোতে \$\$ দেইনি, কারণ \$\$ দিলে তারাও একইভাবে লাইন ভেঙ্গে ফেলত, যা আমি চাইনি। আবার খেয়াল করুন, $\ne$ চিহ্ন প্রকাশে ব্যবহার করেছি \ne, বর্গ $x^2$ প্রকাশের জন্য x^2, $\pm$ এর জন্য \pm, বর্গমূল $\sqrt{}$ এর জন্য \sqrt{}… এরকম গাণিতিক বিভিন্ন প্রতীক, চিহ্ন, ভগ্নাংশ, অপারেটর ইত্যাদি প্রকাশের জন্য $\mathrm\LaTeX$ এ নির্দিষ্ট কোড/কমান্ড আছে। এবিষয়ে ইন্টারনেটে খুঁজলে অনেক চমৎকার ওয়েবসাইট পেয়ে যাবেন। আমার পছন্দের একটা সাইট হল Beautiful Math on Quora


লেখার পাঠক বাড়ানো

আমরা যখন লেখি, তখন চাই যেন লেখাটা অনেক মানুষ পড়ে। কিন্তু পাঠক আসবে কোথ্থেকে?

প্রথমত, সোশ্যাল মিডিয়াতে নিজেরা শেয়ার দিয়ে। সামাজিক মাধ্যমে বিভিন্ন বিজ্ঞান বিষয়ক গ্রুপে লেখার বর্ণনা সহ শেয়ার দিলে একটা প্রাথমিক ট্রাফিক আসে।

দ্বিতীয়ত, বিজ্ঞান ব্লগের কিছু পাঠক আছেন যারা নিয়মিত ওয়েবসাইট চেক করেন নতুন লেখা আসলো কি না। এছাড়া ইমেইল সাবস্ক্রিপশন থেকেও কিছু পাঠক আসেন।

তৃতীয়ত, সার্চ ইঞ্জিন থেকে। গুগল থেকে সার্চ করে করে প্রচুর পাঠক আসতে দেখা যায়। তবে লেখা প্রকাশের সময় খেয়াল রাখতে হবে যে লেখাটার ফরম্যাটিং ঠিক আছে কি না। হেডার, ছোট প্যারাগ্রাফ, সঠিকভাবে লিঙ্ক দেয়া, তথ্যসূত্র দেয়া, যথেষ্ট সংখ্যক ছবি দেয়া সবই ফরম্যাটিং এর অংশ। সুন্দর ফরম্যাটের লেখা পড়তে ভালো লাগে, ইউজার এক্সপেরিয়েন্স ভালো হয় বলে গুগল সার্চ ইঞ্জিনে লেখাটা উপরের দিকে রাখে।

এছাড়া গুগলের বটকে লেখাটা ইন্ডেক্সিং এর সময় বুঝতে সাহায্য করার একটা ব্যপার আছে। এটাকে বলে Search Engine Optimization বা SEO.

এই ভিডিওটা দেখুন।

লেখা প্রকাশের সময় সাইডবারে উপরে একটা SEO Score দেখায়। এই স্কোর যথাসম্ভব বাড়ানোর চেষ্টা করা উচিত, স্কোর যত বেশি, লেখা ততো optimized। স্কোর বাড়ানোর জন্য এই প্লাগিনটা আপনার লেখা বিশ্লেষণ করে কিছু টিপস দেবে, সেগুলো অনুসরণ করলে এই SEO স্কোর বেড়ে যাবে।সার্চ ইঞ্জিনে ভালো র্যাঙ্কিক পাওয়ার মানে দীর্ঘদিন ধরে নিয়মিত পাঠকরা সার্চ করে করে আপনার লেখা পড়বে। সুতরাং এ বিষয়ে খেয়াল রাখুন।

কিভাবে ছবি যুক্ত করবেন?

ওয়ার্ডপ্রেসের নতুন এডিটর গুটেনবার্গ ব্যবহার করে ছবি কিংবা অন্যন্য মিডিয়া যুক্ত করার জন্য এই সহায়িকা দেখুন: ওয়ার্ডপ্রেসের গুটেনবার্গ পরিচিতি

মোবাইল থেকে কিভাবে লেখা দেবেন?

অনেকেই মোবাইলে লেখেন, মোবাইল দিয়ে লেখা প্রকাশ করেন বিজ্ঞান ব্লগে। যদিও আমরা লেখা প্রকাশের জন্য ডেস্কটপ কম্পিউটার বা ল্যাপটপ ব্যবহার করতে বলি, কারণ সেখানে সবচেয়ে বেশি সম্পাদনা করা যায়। তারপরো মোবাইল থেকে লেখা জমা দিতে চাইলে নিচের ভিডিওটা দেখতে পারেন:

নিজের লেখা ছড়িয়ে দিন!

আমরা অনেক পড়াশুনা করে, সময় নিয়ে, তথ্য-যাচাইবাছাই করে একেকটা লেখা লিখলেও সেগুলো ছড়িয়ে দেয়ার জন্য কুন্ঠা বোধ করি। কিন্তু সবারই নিজেদের লেখা ব্যক্তিগত প্রোফাইল ছাড়াও বিভিন্ন বিজ্ঞানের গ্রুপে শেয়ার করা উচিত। (অনেক সময় লিঙ্ক শেয়ার করলে তা গ্রুপের এডমিন স্প্যাম হিসেবে দেখেন। তবে, লেখার উল্লেখযোগ্য অংশ নমুনা হিসেবে লিখে একটা সম্পর্কিত ছবি দিয়ে লেখার শেষে মূল লেখার লিঙ্ক দিলে তা সাধারণত প্রকাশ করে দেন) আমাদের অনেকেই বই পত্র লিখেন, এছাড়া অনেকেই সামনে বই প্রকাশ করবেন। বিজ্ঞানের তরুণ পাঠকদের কাছে নিজের লেখার নমুনা একটু আগে থেকেই শেয়ার করা উচি। পাঠকদের কাছে নিজের লেখা পরিচিত করারও দরকার আছে। নিজের লেখা তো সন্তানের মতো, সেটা ছড়িয়ে দিতে কুন্ঠা বোধ করা উচিত নয়!

নিজের লেখাকে কখনো খারাপ বলবেন না। কখনো বলবেন না, আমার কবিতা হয় না। বললেই লোকে বলবে, ও নিজেই বলে ওরটা হয় না। আমরা কেন ওরটা কবিতা বলব?

শামসুর রাহমান