১০ মিনিটে ক্যান্সার শনাক্তকরণ পদ্ধতি আবিষ্কার

ক্যান্সার শব্দটি শুনলেই এর ভিতরটা কেমন যেন আঁতকে উঠে। কেননা ক্যান্সার হলো পৃথিবীর অন্যতম প্রধান মরণব্যধী। কোন কারণে  আমাদের দেহে স্বাভাবিক কোষ বিভাজন প্রক্রিয়া নষ্ট হয়ে গেলেই ক্যান্সারের সৃষ্টি হয়। কোন নির্দিষ্ট একটা জায়গায় ক্যান্সার হওয়ার পর তা ধীরে ধীরে দেহের অন্যত্র ছড়িয়ে পরে। ২০১৫ সাল নাগাদ প্রায় ৯০.৫ মিলিয়ন মানুষ ক্যান্সার রোগে ভোগছে। প্রতিবছর প্রায় ১৪.১ মিলিয়ন মানুষ ক্যান্সারে আক্রান্ত হয় এবং ক্যান্সারের ফলে মৃত্যুর সংখ্যা প্রায় ৮.৮ মিলিয়ন। ২০১২ সালে প্রায় ১,৬৫,০০০ অনুর্ধ্ব ১৫ বছর বয়সি শিশুর ক্যান্সার রোগ ধরা পরে। মানবদেহে বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে ক্যান্সারে আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা উলেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পায়। কোন রোগীর ক্যান্সার হয়েছে বিস্তারিত

অ্যাপপ্টসিস

মানুষের মৃত্যুর কারন নানান রকম। আলোচনার সুবিধার জন্য দুই ভাগে ভাগ করলাম, আত্নহত্যা আর পরহত্যা(মানে খুন, দূর্ঘটনা, রোগ এরকম পরের দ্বারা হত্যা)। কোষের ক্ষেত্রেও একই প্রকারভেদ প্রয়োগ করা যায়। পরহত্যা-মানে কোন কোষ যদি আঘাতজনিত, বিষক্রিয়া কিংবা কোন ধরনের সংক্রমনের কারনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়, অথবা রক্তের প্রবাহ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে মারা যায় তখন তাকে বলে নেক্রোসিস। নেক্রোসিসের ফলে ক্ষতিগ্রস্থ স্থানে প্রদাহ এবং পরবর্তীতে নানান জটিলতা দেখা দিতে পারে। তবে কোষের সমাজে নেক্রোসিস যতটা অস্বাভাবিক, অ্যাপপ্টসিস ততটাই স্বাভাবিক। তবে অ্যাপপ্টসিস নাম যেমনই হোক, কাজে কিছুটা ভদ্র। মরলে মরে, কিন্তু ছড়ায়না। জী হ্যা। কোষের আত্নহত্যার ব্যাপারটাই আসলে অ্যাপপ্টসিস। এই ব্যাপারটা বেশ সুন্দরভাবে নিয়ন্ত্রিত এবং বিস্তারিত

ক্যান্সারের বিবর্তন রহস্য উন্মোচন

ক্যান্সারের বিবর্তন ও ক্যান্সার চিকিৎসায় পদার্থবিজ্ঞানের সম্পর্ক নিয়ে ফিজিক্স ওয়ার্ল্ডে প্রকাশিত পল ডেভিসের লেখনীর বাংলা বঙ্গানুবাদ। অনুবাদঃ মোঃ রফিকুল ইসলাম পল ডেভিসের মতে ক্যান্সার একটি প্রাচীন ব্যাধি যা সর্বপ্রথম  বিলিয়ন বছর পূর্বে বহুকোষী জীবে দেখা যায়। একজন পদার্থবিদের কাছে জীবন অনেকটা জাদুবিদ্যার মত। জীবিত কোষের জটিল সব কার্যপদ্ধতি দেখে একজন পদার্থবিদ স্বভাবতই অবাক হন। যদিও কিছু জৈবিক পদ্ধতি গণনানির্ভর। এর মধ্যে অন্যতম ডিম্বকের বৃদ্ধি। ক্যান্সারের ক্ষেত্রেও ঠিক এমনটাই ঘটে। ক্যান্সারের উৎপত্তি ও বৃদ্ধির ধরণ সকল রোগীর ক্ষেত্রে এক নয় অর্থাৎ একজনের ক্ষেত্রে যেমনটা ঘটবে অন্যদের ক্ষেত্রে তা নাও ঘটতে পারে। পদার্থবিজ্ঞানের কোন একটি ঘটনা যখন একটি নিয়ম বা সুত্র মেনে বিস্তারিত

উগো চাভেজ কি পরিকল্পিতভাবে ক্যান্সার সংক্রমণের শিকার? ক্যান্সার কি সংক্রামক হতে পারে?

ভেনিজুয়েলার প্রয়াত রাষ্ট্রপতি দাবি করেছিলেন যে তাকে পরিকল্পিতভাবে ক্যান্সার আক্রান্ত করা হয়েছে। তাসমানিয়ান ডেভিল নামক একধরনে প্রাণীর ক্যান্সার সংক্রমণ গবেষক ক্যাথেরিন বেলভ বলছেন, এধরণের সংক্রমণ হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম, কিন্তু একেবারে অসম্ভব নয়!   মূলঃ মারিস্যা ফেসেনডেন অনুবাদঃ সাদিয়া মুসাররাত এবং খান তানজীদ ওসমান আমাদের কথাঃ খুবই কৌতুহলকর এই বৈজ্ঞানিক সাক্ষাৎকারটি প্রকাশিত হয়েছিল Scientific American জার্নালে। উগো চাভেজের মৃত্যুপরবতর্ী রাজনীতি, এবং ভেনেজুয়েলার ভবিষ্যৎ নিয়ে দুনিয়াজুড়ে বহু প্রবন্ধ, লেখা, সাক্ষাৎকার ছাপা হয়েছে। সংগ্রামে ভরা রাজনৈতিক জীবনে যেমন সুনাম এবং সমালোচলনা দুইই কামিয়েছেন, তেমনি বেঁচে থাকতেই বহু বিতর্কে জড়িয়েছিলেন তিনি। মৃত্যুও বিতর্কের পিছু ছাড়েনি। ২০১১ সালে ক্যান্সার সনাক্ত হওয়ার পর দাবি করছিলেন তার বিস্তারিত