অনলাইন একাডেমিক প্রোফাইল

বর্তমান সময়ে সকল গবেষকদের একাডেমিক প্রোফাইল অনলাইনে থাকা খুব দরকারি। যারা গবেষণা অনুদান দিবে অথবা গবেষণা-সম্পর্কিত চাকরি দিবে, তারা সহজেই আপনার সব কাজ একসাথে দেখে নিতে পারে। অনেক জার্নাল এই কারণে অনলাইন একাডেমিক প্রোফাইল অথরের নামের সাথে বসিয়ে দিতে আগ্রহী। এই অনলাইন একাডেমিক প্রোফাইল ব্যাপারটা খুবই দরকারি জিনিস। এই দরকারি জিনিসটা করার জন্য অনেকগুলো প্ল্যাটফর্ম আছে এখন। যেমনঃ গুগল স্কলার, অর্কিড, একাডেমিয়া ডট এডু, রিসার্চগেট ইত্যাদি। কিন্তু, অনেক অনেক প্ল্যাটফর্মের মাঝে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে রিসার্চগেট। ২০১৬ সালের পরিসংখ্যান অনুসারে ১১ মিলিয়ন ব্যাবহারকারী এবং ১০০ মিলিয়ন পাবলিকেশন। কি কারণে রিসার্চগেট এতো জনপ্রিয়? অন্য সব অনলাইন একাডেমিক প্রোফাইলের বিস্তারিত

কি পড়িলে কি বুঝিবেন

বিশেষ সতর্কীকরণ : এটা কেবলই একটা মজাদার পোস্ট। দয়া করে কেউ সত্য-সত্যই বিজ্ঞানের সব জার্নালে এই “অভিধান” প্রয়োগ করবেন না। বিজ্ঞান বেশ সিরিয়াস জিনিস। বিজ্ঞান ঠিক তাই বলে, যা সে বোঝাতে চায়। আপনি হয়তো কোন জার্নাল পড়ছেন। অথবা কোন সিম্পোজিয়ামে গিয়েছেন। বিষয় হলো বিজ্ঞানের। আপনি বিজ্ঞানের ঐ বিভাগের পরিভাষা হয়তো জানেন। পরিভাষার সাথে সাথে ভাষার ব্যবহারও কিন্তু খেয়াল করতে হবে! বেশ কিছু বাক্যাংশের মাধ্যমে লেখক, বা বক্তা মূলত কি বোঝাতে চাচ্ছেন তা কিন্তু অনেক সময়ই অনুক্ত থেকে যায়। (সম্ভবত এই জিনিসটা দূর্বল গবেষণার ফসল)  ভাষা দিয়ে আসলে কিন্তু অনেক কিছুই আড়াল করে দেয়া যায়।