দেজাভুঁ – একটি অদ্ভূত অভিজ্ঞতা

কখনো কি আপনার মনে হয়েছে আপনার দেজাভুঁ হচ্ছে? কোন ঘটনা ঘটে যাওয়ার সময় কি আপনার মনে হয়েছে এটি আগেও ঘটেছিলো? নতুন কোন দৃশ্য, মানুষকে দেখে সময় মনে হয়েছে কি আপনি আগেও দেখেছেন?

Don’t know why I feel this way
Have I dreamt this time, this place?
Something vivid comes again into my mind
And I think I’ve seen your face
Seen this room, been in this place
Something vivid comes again into my mind

আয়রন মেইডেনে ড্রিম অব দ্য মিররের মতোই কি একেবারেই অচেনা জায়গায়, অচেনা মানুষকে দেখে যদি মনে হয় আগেও একই দৃশ্যপটে একই মানুষের সাথে ছিলেন? তাহলে বুঝবেন – আপনার দেজাভুঁ হচ্ছে।

দেজাভুঁ কোন অলৌকিক, অতিন্দ্রীয় ক্ষমতা নয়। নয় পূবজনমের স্মৃতি।

মনোবিজ্ঞানের বিশেষ শাখাই আছে যেখানে স্মৃতি নিয়ে কাজ করা হয়। স্মৃতিমনোবিজ্ঞানীরা দেখেছেন, আমাদের অতীতে যা  ঘটেছিলো সেই স্মৃতির সাথে যুক্ত থাকে কোথায় ঘটনাটা ঘটেছিলো বিষয়ক স্মৃতি। এই পরবর্তী কোথায় ঘটনা ঘটেছিলো বিষয়ক স্মৃতিকে বলে সূত্র-স্মৃতি।

দেজাভুঁতে অপরিচিত ঘটনাকে পরিচিত ঘটনা মনে হয়। আমরা কিভাবে বুঝতে পারি যে আমরা পরিচিত ঘটনাপ্রবাহের মধ্যেই আছি? আসলে এর জন্য দুইটি পদ্ধতি আছে। পূর্বের অবস্থা (situation) থেকে স্মৃতি তুলে আনা হলো একটি পদ্ধতি। যেমন আপনি হয়তো আপনার শৈশবের গ্রামে চলে গেছেন। তখন আপনার মনে হবে কোন মাঠে আপনি খেলতেন, কোন আমগাছ থেকে আপনি পড়ে গিয়েছিলেন ইত্যাদি।

দেজাভুঁ কি

অতীতেকে বোঝার মাধ্যমে আমরা গড়ে উঠি। তবুও আমাদের মন কখন কি স্মরণ করবে সেটা আমাদের নিয়ন্ত্রণের অধীনে নয়।

মজার ব্যাপার হলো, আপনি কখনো কখনো অনুভব করতে পারেন যে আপনি কোথাও আগে ছিলেন। এই জানার অনুভূতি-র সাথে সম্পর্কিত সূত্র-স্মৃতি। তাই যখন আপনি শৈশবের গ্রামে ঘুরছেন, তখন পাশের পাড়ার স্কুলটি আপনার পরিচিত মনে হতে পারে। অথচ কবে ওই স্কুলটিতে গিয়েছিলেন এটা আপনার হয়তো মনে পড়ছে না।

২০০৯ সালে সাইকোনমিক বুলেটিন শীর্ষক জার্নালে প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে দেজাভুঁ নিয়ে কিছু পরীক্ষার কথা বলা হয়। একদল লোককে কিছু দৃশ্যের ছবি দেখতে দেয়া হলো। এরপর তাদেরকে নতুন কিছু দৃশ্যের ছবি দেখতে দেয়া হলো। তাদেরকে প্রশ্ন করা হলো এই ছবিগুলো আগে তারা দেখেছে কি না। কোন কোন ছবি আগের ছবির সাথে সামঞ্জশ্যপূর্ণ ছিলো, কিন্তু তাদের বিষয়বস্তু ছিলো ভিন্ন। যেমন আগের ছবিতে হয়তো একটি বাড়ি আর বেড়ার মাঝে একটি হাটাপথ  ছিলো। পরের ছবিতে হয়তো ট্রেন স্টেশন এবং ট্রেনের মধ্যে একটি রাস্তা ছিলো। এই ক্ষেত্রে অনেকেই বলেছে যে নতুন ছবিটা দেখার পর তাদের এক অদ্ভূত অনুভূতি হয়েছে। মনে হয়েছে, এই ছবিটা তারা আগেও দেখেছে।

আসলে মূল ব্যাপারটা কি?

বিষয়বস্তুর জন্য আমাদের সাধারণত ভালো স্মৃতি থাকে। আমরা পরিচিত বস্তুকে অপরিচিত প্রেক্ষাপটে দেখলেও আমাদের মনে হবে বস্তুটিকে আগে এই অবস্থাতেই দেখেছি।

কোন বস্তু কোন কোন প্রেক্ষাপটে ছিলো সে বিষয়ক স্মৃতি সাধারণত খুব নিখুঁত হয় না। তাই যখন অপরিচিত বস্তুকে পরিচিত প্রেক্ষাপটে দেখি, তখন মনে হতে পারে এই ঘটনা আগেও দেখেছি। অথচ সুনির্দিষ্টভাবে কোথায় দেখেছি সেই স্মৃতি মনে আসবে না।

মূল লেখা http://www.psychologytoday.com/blog/ulterior-motives/201001/what-is-d-j-vu

ছবি কৃতজ্ঞতা:
Sep Nabi, CC BY-SA 4.0

৪ thoughts on “দেজাভুঁ – একটি অদ্ভূত অভিজ্ঞতা

  1. অনেক কিছু পরিস্কার হল এই লেখাটা পড়ে … আসলে ব্যাপারটা এই ভাবে কোন সময় চিন্তা করিনি … এই type এর লেখা আর আশা করি…

    1. আপনারও কি দেজাভুঁ হয়? আমার ইদানিং ঘন ঘন হচ্ছে … তাই এই লেখাটা। এক সময় ভাবতাম দেজাভুঁ কোন অতিন্দ্রীয় ব্যাপার-স্যাপার …

  2. আমার ঘন ঘন হয় না………কিন্তু হয়েছে । আর অতিন্দ্রীয় ব্যাপার-স্যাপার এইটা আমিও এক সময় মনে করতাম আর এর জন্য দায়ী বলতে পারেন কিছু ‘বিজ্ঞানের কল্পকাহিনী’ র বই…

আপনার মতামত

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.