ইগ-নোবেল পুরষ্কার ২০১৩

 

 

সবাই হয়তো জানেন- অদ্ভুত ধরনের আবিষ্কার বা কীর্তির জন্য প্রতিবছর  ইগ-নোবেল পুরষ্কার দেয়া হয় ১০ টি ক্যাটাগরিতে। এটা আসলে চালু হয়েছিল আমেরিকাতে, আসল নোবেল পুরষ্কারকে ব্যাঙ্গ করে। Annals of Improbable Research নামের রসাত্মক ম্যাগাজিন প্রতিবছর আয়োজন এবং বিতরণ করে এই পুরষ্কার। হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে স্যান্ডার্স থিয়েটারে এই পুরষ্কার বিতরণ করা হয়। মজার বিষয় হল আমি মাত্র গতকাল (১২ সেপ্টেম্বর) এই থিয়েটারের আশেপাশে দিয়ে ঘুরে এসেছি। কিন্তু তখন জানতাম না এই তথ্যটার কথা। আর ১২ তারিখ রাতেই এখানে ২০১৩ সালের পুরষ্কার বিতরণ করা হয়! পুরষ্কারের পরে এমআইটি তে পুরষ্কার বিজয়ীদের বক্তৃতার ব্যবস্থা করা হয়। আসুন জেনে নেই কি কি বিষয়ে, কেন পেলেন এবছরের ইগ-নোবেল পুরষ্কার। খুবই মজার। বিজয়ীদের নাম এবং অন্যান্য তথ্য খুঁজে পাবেন Improbable Research এর ওয়েবসাইটে

 

স্যান্ডার্স থিয়েটার, হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়

 

১. চিকিৎসা পুরষ্কারঃ

অপেরা শোনা হৃদযন্ত্র প্রতিস্থাপিত রোগীদের উপর কিরকম প্রভাব ফেলে সেটা পরীক্ষা করে বের করেছেন। তবে পরীক্ষাটিতে রোগীরা সবাই ছিলেন ইঁদুর।

 

২. মনোবিজ্ঞান পুরষ্কারঃ

যেসব মানুষ ভাবে যে তারা মদ্যপ বা ড্রাংক তারা এটাও ভাবে যে তারা নিজেরা দেখতে আকর্ষনীয়- এই জিনিস খুঁজে পেয়েছেন।

 

৩. যুগ্মভাবে জীববিজ্ঞান এবং মহাকাশ বিজ্ঞান পুরষ্কারঃ

গোবরের পোকা বা গুবরে পোকা যখন দিক হারিয়ে ফেলে তখন মিল্কি ওয়ে’র দিকে দেখে দেখে ঘরে ফিরে আসতে পারে- এটা আবিষ্কার করেছেন।

 

৪. নিরাপদ প্রকৌশল পুরষ্কারঃ

বিমান ছিনতাইকারীদের পাকড়াও করার জন্য একটা তড়িৎ-চৌম্বক ব্যাবস্থা আবিষ্কার করেছেন যেখানে ছিনতাইকারীকে একটা ক্যাপসুলে ভরে প্যারসুটে নামিয়ে দেয়া হবে এমন যায়গায় যেখানে আগে থেকে খবর দেয়ে পুলিশ অপেক্ষা করবে।

 

৫. পদার্থবিদ্যা পুরষ্কারঃ

কিছু মানুষ পুকুরের পানির উপর দিয়ে দৌড়াতে সক্ষম হবেন- এটা আবিষ্কার করেছেন। তবে পুকুর এবং মানুষ দুটোই থাকতে হবে চাঁদে।

 

৬. রসায়ন পুরষ্কারঃ

খুঁজে বের করেছেন যে আমাদের আগের জানা পেঁয়াজ কাটলে চোখ দিয়ে পানি বের হওয়ার জৈবিক কারনটি আরও বেশি জটিল।

 

৭. প্রত্নতত্ব পুরষ্কারঃ

মৃত শ্রিউ (ইঁদুর টাইপ জন্তু) কে যদি সিদ্ধ করে না চাবিয়ে গিলে ফেলা হয় তবে কয়েকদিনে পেটের ভিতর কোন হাড় পরিপাক হয় আর কোনটা হয়না সেটা খুঁজে পেয়েছেন।

 

৮. শান্তি পুরষ্কারঃ

পাবলিক জায়গায় হাততালি দেয়া নিষেধ করেছেন বেলারুশের প্রেসিডেন্ট Alexander Lukashenko। আর বেলারুশের পুলিশ একজন একহাত ওয়ালা মানুষকে হাততালির জন্য গ্রেপ্তার করায়ও পুরষ্কারটির ভাগ পেয়েছে।

 

৯. সম্ভাবনা পুরষ্কারঃ

দুইটা আবিষ্কারের জন্য এবার দেয়া হলঃ প্রথমটা হল- একটা গরু যতক্ষণ শুয়ে থাকে তারপরেই ঠিক ততক্ষণই দাঁড়িয়ে থাকে। দ্বিতীয়টা হল- গরু যখন দাঁড়িয়ে থাকে তখন কোনভাবেই বোঝা যায়না যে এটা কখন শুয়ে পরবে।

 

১০. জনস্বাস্থ্য পুরষ্কারঃ

থাইল্যান্ডের সিয়াম নামক যায়গায় পুরুষের জননাঙ্গ কেটে ফেলার হিড়িকের ফলে এসব রোগীর চিকিৎসাশাস্ত্রীয়ভাবে দেখভাল করার উপায় দেখিয়েছেন। প্রকাশিত নিবন্ধে তারা বলেছেন যে এই ধরনের উপায় কাজ করবে, যদিনা কোন হাঁস পুরুষাঙ্গের কিয়দাংশ খেয়ে ফেলে।

 

 

ইগ-নোবেল পুরষ্কার বিতরণী উদযাপন করছেন বিজয়ীরা

 

৩ thoughts on “ইগ-নোবেল পুরষ্কার ২০১৩”

আপনার মতামত

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

গ্রাহক হতে চান?

যখনই বিজ্ঞান ব্লগে নতুন লেখা আসবে, আপনার ই-মেইল ইনবক্সে চলে যাবে তার খবর।