সাধারণভাবে, রাজত্ব দ্বারা বোঝায় কোন রাজ্যের রাজা কিংবা সম্রাটের দ্বারা রাজ্য পরিচালনা করা । যেখানে রাজা হবে একজন আর তার থাকবে বিশাল জনসংখ্যার প্রজা।

তবে ‘ব্যক্টেরিয়ার-রাজত্বের’ সাথে মানুষের রাজত্বের কিছুটা অবশ্যি পার্থক্য রয়েছে। যেমনঃ ব্যাকটেরিয়ার রাজত্বে রাজা হলো একক কোন ব্যক্টেরিয়া নয় বরং পুরা প্রজাতির সকল ব্যক্টেরিয়া। যেন আমরা সবাই রাজা মেনে চলে। আর সেখানে রাজত্বের বিস্তৃতি হলো মানুষ থেকে শুরু করে অন্যান্য প্রাণী, মাটি, পানি, বায়ু অর্থাৎ চারপাশের পুরা পরিবেশ টাই। সে এক ভিন্ন ধরণের রাজ্য। যেখানে রাজ্য পরিচালনা করেন সম্রাট “ব্যাকটেরিয়া” । কেননা পরিবেশের সকল জায়গাতেই তার উপস্থিতি মিলে। সামান্য এক গ্রাম মাটির কথায় চিন্তা করা যাক। সেখানেও ৪০ মিলিয়ন ব্যক্টেরিয়া থাকতে পারে আবার, এক মিলিলিটার পানিতে ১ মিলিয়ন ব্যাক্টেরিয়াল কোষ থাকতে পারে। ব্যাকটেরিয়ারা মাটি, পানি, অম্লীয় কিংবা উত্তপ্ত অঞ্চলে, তেজস্ক্রিয় বর্জ্য এবং পৃথিবীর গভীর ভূত্বকেও কোথায় নেই?? আবার, তার রাজত্ব কাল কত পুরাতন সেটাও আমাদের ধারণার বাহিরে!
কেননা, পূর্ণগঠিত ব্যক্টেরিয়া পূর্বপুরুষ (ancestors) ছিলো এককোষী অণুজীব, যা ছিলো পৃথিবীতে জীবনের প্রথম রুপ, তাও ৪ বিলিয়ন বছর আগের কথা। ৩ বিলিয়ন বছর পূর্বেও বেশির ভাগ অণুজীবই ছিলো আণুবীক্ষণিক এবং ‘ব্যক্টেরিয়া’ এবং ‘আর্কিয়া’ (archaea) ই ছিলো জীবনের প্রধান রুপ। তবে, বর্তমানে যে সকল ব্যক্টেরিয়া এবং আর্কিয়া পাওয়া যায় তা ছিলো হাইপার-থার্মোফাইল (উচ্চ-তাপমাত্রা সহ্যকারী) এর অন্তর্গত, যা কিনা ২.৫~৩.২ বিলিয়ন বছর আগের। এইতো ২০১৮ সালের জুলাই মাসেই হবে, বিজ্ঞানীরা একটা প্রতিবেদন প্রকাশ করলেন, যেখানে বলা হলো “পৃথিবীতে প্রথম জীবনই হলো ব্যক্টেরিয়া, যে কিনা ৩.২২ বিলিয়ন বছর ধরে বাস করে আসছে।” আমাদের চারপাশে যে কি পরিমাণ ব্যক্টেরিয়া তা আমাদের কল্পনার বাহিরে। শুধু আমাদের পাকস্থলীতেই এক হাজারের মত ব্যাকটেরিয়ার প্রজাতি রয়েছে। মানুষের পুরা দেহেই যেখানে কয়েক ট্রিলিয়ন কোষ আছে, সেখানে ব্যাক্টেরিয়ার সংখ্যা এর থেকেও ১০-১০০ গুণ বেশি!!
পৃথিবীতে আণুমানিক প্রায় ৫×১০^৩০টি ব্যাক্টেরিয়া আছে। তাহলে কি পরিমাণ ব্যক্টেরিয়া সাথে আমাদের বসবাস চিন্তা করা যায়?? তবে, আরেকটি মজার ব্যাপার হচ্ছে, পৃথিবীর ১ ট্রিলিয়ন অণুজীব প্রজাতির যত ধরণের অণুজীব আছে তার মাত্র ১% এখন পর্যন্ত আবিষ্কৃত হয়েছে এবং ৯৯% সম্পর্কেই এখনো আমাদের অজানা। যার মানে দাড়ায় শুধু ব্যক্টেরিয়া নয় বরং অনেক ধরণের অনুজীবে আমাদের বসবাস। যেন আমরা বাস করছি অণুজীবের গ্রহে। আমরা বাস করছি ব্যাকটেরিয়ার রাজত্বে।

ফেসবুকে আপনার মতামত জানান

লিখেছেন এফ, এম, আশিক মাহমুদ

আমি বর্তমানে 'নোয়াখালি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়' এ 'মাইক্রোবায়োলজী' বিভাগের মাস্টার্স প্রথম বর্ষে অধ্যয়নরত। বর্তমানে অণুজীব বিজ্ঞানের একজন উৎসুক ছাত্র এটাই আমার পরিচয়। নতুন নতুন অবাক করা তথ্য জানতে ভালো লাগে।

এফ, এম, আশিক মাহমুদ বিজ্ঞান ব্লগে সর্বমোট 1 টি পোস্ট করেছেন।

লেখকের সবগুলো পোস্ট দেখুন

মন্তব্যসমূহ

    • এফ, এম, আশিক মাহমুদ Reply

      ধন্যবাদ স্যার। 🙂
      যদিও গুছিয়ে লিখতে পারি নি। কারণ, আমার আগে কখনও ব্লগে লিখার অভ্যাস নাই। 🙁 স্যার অনুপ্রেরণার জন্য ধন্যবাদ। দোয়া রাখবেন, যেন ভাল কিছু লিখার গুণাবলিটা অর্জন করতে পারি। 🙂

আপনার মতামত