কোভিড-১৯ এর সময় গর্ভবতী মহিলাদের যা জানা উচিত

পরিবারের কোনো নতুন সদস্য আসবে এমন সংবাদ শোনার পর পরিবারের সকলেই ওই মায়ের প্রতি বিশেষ যত্ন নিতে শুরু করে। যদি ওই মাকে সবচেয়ে ভালো পরিবেশেও রাখা হয় তবুও সবার উৎকণ্ঠার শেষ থাকেনা। আর বর্তমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতি আরো দুশ্চিন্তার। এখন তো বলাই যায় covid-19 এর দখলেই সারা বিশ্ব। তাই স্বাভাবিকভাবেই গর্ভবতী মহিলা এবং তার পরিবার অত্যন্ত উৎকণ্ঠায় দিন কাটাচ্ছে আগত নতুন সদস্যকে নিয়ে৷ এমন সময় Maternal Fetal Medicine এর প্রধান মার্ক ইনসার্পি covid-19এর মহামারিতে মধ্যে গর্ভবতী মহিলাদের জন্য কিছু নির্দেশনা দিয়েছেন ।

গর্ভাবস্থায় মহিলাদের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা সাধারণ নারীদের থেকে একটি নির্দিষ্ট পর্যায় পর্যন্ত বেশ শক্তিশালী হয়ে থাকে । তবে এটা কোন ভাবেই মনে করা যাবে না যে covid-19 থেকে গর্ভবতী মায়েরা কম ঝুঁকিপূর্ণ। বরং তারা অনেক বেশি ঝুঁকিতে থাকে । বিশেষ করে গর্ভাবস্থার প্রথম তিন মাস চলাকালীন সময়ে এই ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি থাকে বলে মনে করা হয়। কেননা এ সময় নানা ধরনের শারীরিক পরিবর্তন হয়ে থাকে। যেহেতু ভ্রণ এবং অমরা উভয়ই এই অবস্থায় বড় হতে থাকে তাই SARS-CoV2 ভাইরাস সংক্রমণ যে একটা বড় প্রভাব ফেলতে পারে তা বলাই যায়।

অন্যদিকে গর্ভবতী মহিলাদের নিয়মিত চেকআপ করার বিষয়টি থেকেই যায়। এক্ষেত্রে সাধারণ মানুষদের মতোই মায়েদের কোভিড-১৯ সংক্রমণ হওয়ার বিষয়টি বিবেচনা করা উচিত। গর্ভবতী মহিলাদের উচিত অন্যদের মতো সঙ্গনিরোধ বা কোয়ারেন্টাইনে থাকা। এছাড়াও ডাক্তারের চেম্বারে না গিয়ে টেলিমেডিসিনের সাহায্য নেয়াকেই বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন তিনি। কেননা এখানে হাসপাতালের কর্মী, ডাক্তার এমনকি রোগীরও নিরাপত্তা বিষয়ে থেকে থাকে। এমনকি জরুরী প্রয়োজন ছাড়াও আল্ট্রাসনোগ্রাম করতেও নিষেধ করছেন তিনি৷ উল্লেখ্য যে গর্ভবতী মহিলার সেবায় একজনের বেশি মানুষ না থাকাই উচিত এবং সেবাদাতাকেও  উচিত কোয়ারেন্টাইন এর শর্তগুলো মেনে চলা।

আরেকটি বিষয় হলো , এখন পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুযায়ী গর্ভাবস্থায় থাকা ভ্রুণের ঝুঁকি তুলনামূলক অনেক কম। চীনের উহানে এরকম একটি কেস পাওয়া গিয়েছে, যেখানে একজন কোভিড-১৯ আক্রান্ত  মা যে বাচ্চা প্রসব করে তার কোভিড-১৯ পরীক্ষা নেগেটিভ হয়েছে। এমনকি বাচ্চার দেহে করোনার বিরুদ্ধে এন্টিবডি পাওয়া গেছে বলেও দাবি করা হয়েছে।

বাচ্চা মায়ের দুধ পান করতে পারবে কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন মায়ের দুধে করোনা ভাইরাসের উপস্থিত না থাকার কথা (বিষয়টি এখনও গবেষণার পর্যায়ে) ।   তবে মায়ের দেহ থেকে যেন বাচ্চা না আক্রান্ত হয় তার জন্য মাস্ক ব্যবহার এবং অন্যান্য বিষয়গুলো মনে রাখা জরুরী। তবে এক্ষেত্রে মায়ের দুধ বোতলে নিয়ে বা বোতল জাত দুধ খাওয়ানোর গুরুত্ব দেওয়া উচিত।

এছাড়াও গর্ভবতী মহিলাদের জন্য যে বিশেষ যত্ন প্রয়োজন তাও জোরদার করা কথা বলেছেন তিনি।

তথ্যসূত্র: Do pregnant women face special risks from COVID-19?

আপনার মতামত

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.